গত মাসের মার্চ থেকে দেশে করোনা সংক্রমণ আশঙ্কাজনকভাবে বেড়ে যাওয়ায় মসজিদ কিংবা অন্যান্য উপাসনালয়ে নামাজ ও প্রার্থনার আগে ও পরে যেকোনও ধরনের সভা-সমাবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়।

বুধবার (৭ এ্রপ্রিল)ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে জারি করা বিজ্ঞপ্তিতে এ নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বর্তমানে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ আশঙ্কাজনকভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় দেশের সব মসজিদে জুমা ও ওয়াক্তের নামাজ এবং অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয়ে প্রার্থনার আগে ও পরে গণজমায়েত নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে। সঙ্গে আরও কিছু শর্ত প্রতিপালনের জন্য ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে সব ধর্মপ্রাণ ব্যক্তিকে অনুরোধ করা হচ্ছে।এসব নির্দেশনা মানা না হলে স্থানীয় প্রশাসন ও আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণকারী বাহিনীর সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীলদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নির্দেশনায় যা আছে- ১. জুমা ও অন্যান্য ওয়াক্তের নামাজ এবং প্রার্থনার আগে ও পরে মসজিদ ও অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয়ে কোনো প্রকার সভা ও সমাবেশ করা যাবে না। ২. মসজিদে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে তারাবিসহ অন্যান্য নামাজ আদায় করতে হবে। অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয়ে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে প্রার্থনা করতে হবে। ৩. প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ২৯ মার্চের দেয়া প্রজ্ঞাপনের ১৮ দফা, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ৪ এপ্রিল দেয়া প্রজ্ঞাপনের ১১ দফা এবং ধর্ম মন্ত্রণালয়ের ৫ এপ্রিলের জারি করা সকল নির্দেশনা মেনে চলতে হবে।

এ নিয়ে প্রাণঘাতি করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে স্থানীয় প্রশাসন, আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণকারী বাহিনী, ইসলামিক ফাউন্ডেশন, সংশ্লিষ্ট মসজিদ ও অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয়ের পরিচালনা কমিটিকে নির্দেশনা বাস্তবায়নে দায়িত্ব পালন করতে বলা হয়েছে।

Leave a Reply