রাতের খাবার খাওয়ার সময় গুলি করে মাকে খুন করার পর কিশোরী বোনের সঙ্গে উদ্দাম নাচ নাচলেন যুবক। এমনই চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্প্রিংভিলে এলাকায়। নিসংশ্ব সেই ঘটনায় মাইক লোপেজ নামের ২৩ বছরের ওই যুবক ও ১৪ বছরের কিশোরী বোনকে আটক করেছে পুলিশ।

ঘটনাটি দেখার পর তাদেরই ১৭ বছরের আরেক বোন নিজেকে কোনোভাবে রক্ষা করে পুলিশের কাছে মাইকের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানায়। তিনি জানিয়েছে, মা ভিক্টোরিয়া রামিরেজ, মাইক এবং তার ১৪ বছরের বোনের সঙ্গেই রাতের খাবার সারছিল সে। আচমকা মাইক ও ছোট বোনের মধ্যে চোখের ইশারায় কিছু কথা হয়। তারপরই মাইক মাকে গুলি করে। খাবারের টেবিলেই লুটিয়ে পড়েন ৪৩ বছরের ভিক্টোরিয়া। ঘটনার পরই উল্লাসে নাচতে থাকে মাইক ও তার ১৪ বছরের বোন। ভয়ে বাথরুমে গিয়ে লুকিয়ে পড়ে ১৭ বছরের কিশোরী। বাথরুমের জানলা দিয়ে পালিয়ে নিজের বড় বোনকে ফোন করে। তিনিই পুলিশকে খবর দেন।

জানা গিয়েছে, খবর পেয়ে পুলিশ যখন ঘটনাস্থলে পৌঁছায়, তখন মাইক বাথটবে বেহুশ হয়ে পড়ে ছিল। হাতে ছিল বন্দুকটি। প্রথমে মানসিক রোগে আক্রান্ত হওয়ার নাটক করছিল সে। পরে জানা যায় মানসিক রোগ নয়, মাদকাসক্ত ছিলো ২৩ বছরের ওই যুবক। ঘটনার সময়ও গাঁজার নেশায় আচ্ছন্ন ছিল সে।

অন্যদিকে, মায়ের মৃত্যু নিয়ে ভাবলেশহীন ১৪ বছরের কিশোরী। ঘন ঘন বক্তব্য বদল করছে সে। পুলিশের প্রশ্নের জবাবে প্রথমে সে জানিয়েছিল, ওই নারী নাকি তার মা নন। পরে জানায় সেই সময় সে বাথরুমে ছিল। পরে আবার গানের ছন্দে নাচার কথা স্বীকার করে নেয়। গানের কথা মনে করার চেষ্টা করে। কিশোরীকে জুভেনাইল সংশোধনাগারে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। সেখানে মনোবিদের তত্ত্বাবধানে রাখা হবে বলে জানা গিয়েছে। মাইককে আপাতত পুলিশি হেফাজতে রাখা হয়েছে।

Leave a Reply